Server sync... Block time in database: 1615391772, server time: 1664355185, offset: 48963413

সজনের ডাঁটা এবং কুমড়োর বড়ি দিয়ে তৈরি রেসিপি


হ্যালো বন্ধুরা, সবাই কেমন আছেন? আশা করি সবাই ভালো আছেন। সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে আজকের ব্লগটি শুরু করছি।

আজকে আপনাদের সাথে একটা রেসিপি শেয়ার করে নেবো। আজকে আমি একটু নিরামিষ টাইপ এর রান্না করেছি। আজকের নিরামিষটা আমি সজনে ডাঁটা আর কুমড়োর বড়ি দিয়ে করেছি। গরমে এই তরকারিটা সাধারণের মধ্যে একদম সেরা, আমার কাছে দারুন লেগেছিলো খেতে। তাছাড়া সজনে খাওয়া অনেক উপকারী, আমি সজনের ডাঁটাটা বিশেষ করে বেশি খেতে পছন্দ করে থাকি। সজনের সবকিছুতেই উপকারী আছে যেমন ডাঁটার পাশাপাশি পাতা, ফুল সব খাওয়া যায়। সজনের পাতার রস অনেক উপকারী। পাতা , ফুল শরীরে ঔষধের কাজ করে থাকে। আর সজনের ডাঁটার ভিতরের বীজটা বেশি ভালো লাগে আমার কাছে খাওয়ার সময়। যাইহোক, এখন আমি আজকের এই রেসিপিটার মূল পর্বের দিকে চলে যাবো।


♚প্রয়োজনীয় উপকরণসমূহ:♚

উপকরণ
পরিমাণ
কুমড়োর বড়ি
পরিমাণমতো
আলু
৫ টি
সজনে ডাঁটা
৪ টি
কাঁচা লঙ্কা
৬ টি
জিরা
পরিমাণমতো
সরিষার তেল
৪ চামচ
লবন
২ চামচ
হলুদ
২ চামচ
জিরা গুঁড়ো
১/২ চামচ

কুমড়োর বড়ি, আলু, সজনে ডাঁটা

কাঁচা লঙ্কা, সরিষার তেল, লবন, হলুদ, জিরা গুঁড়ো

এখন রেসিপিটি যেভাবে তৈরি করলাম---


✠প্রস্তুত প্রণালী:✠


➤আলুগুলোর খোসা ছালিয়ে নিয়ে কেটে পিচ করে নিয়েছিলাম প্রথমদিকে এবং পরে জল দিয়ে ধুয়ে নিয়েছিলাম। এরপর সজনের ডাঁটা কেটে ছোট ছোট করে নিয়েছিলাম। কাঁচা লঙ্কাগুলো কেটে নিয়েছিলাম।

➤কুমড়োর বড়ি ভালো করে ভেজে নিয়েছিলাম। এরপর আলুর পিচগুলো ভালো করে ভেজে নিয়েছিলাম।

➤কড়াইতে তেল দেওয়ার পরে পরিমাণমতো জিরা দিয়ে দিয়েছিলাম। এরপর তাতে ভেজে রাখা আলুর পিচগুলো দিয়ে দিয়েছিলাম।

➤আলুগুলো জিরার সাথে মিশিয়ে একবারে হাতা দিয়ে চেপে চেপে গলিয়ে নিয়েছিলাম। গলানো হয়ে গেলে তাতে কেটে রাখা সজনের ডাঁটা দিয়ে দিয়েছিলাম।

➤সজনের ডাঁটা দেওয়ার পরে তাতে স্বাদ মতো লবন, হলুদ আর কাঁচা লঙ্কা দিয়ে দিয়েছিলাম। এরপর সব উপাদানের সাথে ভালো করে মিশিয়ে নিয়েছিলাম।

➤মেশানো হয়ে গেলে তাতে পরিমাণমতো জল দিয়ে দিয়েছিলাম। এরপর তরকারিটা অল্প সময়ের জন্য ফুটিয়ে নিয়েছিলাম।

➤তরকারি ফুটে উঠলে তাতে ভাজা কুমড়োর বড়িগুলো দিয়ে দিয়েছিলাম। এরপর তরকারিটা পুরোপুরি সম্পন্ন হয়ে আশা পর্যন্ত দেরি করেছিলাম।

➤তরকারি পুরোপুরি হয়ে গেলে তাতে খুবই অল্প করে জিরার গুঁড়ো ছড়িয়ে দিয়েছিলাম। আর এখন এই নিরামিষ তরকারিটা পরিবেশন করে খাওয়ার জন্য প্রস্তুত। এই নিরামিষ তরকারিটা খেতে খুবই মজাদার, আপনারাও বাড়িতে এইভাবে তৈরি করে খেয়ে দেখতে পারেন।

রেসিপি বাই, @winkles

শুভেচ্ছান্তে, @winkles


||amarbanglablog community page||

Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP 500 SP 1000 SP 2000 SP 5000 SP

Heroism_3rd.png

|| Join the Discord Server for more Details ||


||Discord Link||


Comments 27