সমাজ পরিবর্তনে আমার ভাবনা || পর্ব ১ || একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত দোকান খোলা রাখা[10% @shy-fox]


ভূমিকাঃ

ছোট্ট কোন পদক্ষেপের মাধ্যমে অনেক সময় সমাজের অনেক বড় পরিবর্তন সাধন করা সম্ভব। সেরকমই কিছু চিন্তা আমার মাথায় প্রায়শই ঘুরপাক খায় কিন্তু সেগুলো কখনো কারো কাছে বলা হয়ে ওঠেনা। মাঝে মাঝে ডায়েরিতে লিখে থাকি। হঠাৎ করে ভাবলাম ব্লকচেইনে এই বিষয়গুলো শেয়ার করে দেয়া যাক। হয়তো আজকে কেউ পদক্ষেপ নেবে না অথবা নেওয়া সম্ভব হবে না কিন্তু একটা সময়ে গিয়ে হয়তোবা কেউ না কেউ এই পদক্ষেপ গুলো সমাজে বাস্তবায়ন করে বড় কোনো পরিবর্তন সাধন করতে পারে।

সেরকমই চিন্তাভাবনা থেকে আমার বাংলা ব্লগ কমিউনিটি-তে সমাজ পরিবর্তনে আমার ভাবনা নামে একটি সিরিজ লিখছি যেখানে সেই সকল ক্ষুদ্র পরিবর্তনের কথা গুলো শেয়ার করবো যেই পরিবর্তনের মাধ্যমে আমরা সমাজ ব্যবস্থায় একটা বড় পরিবর্তন আনতে পারব অর্থাৎ আমি যদি দায়িত্বশীল হতাম তাহলে কি পরিবর্তন করতাম। চলুন শুরু করা যাক।

Thumbnails.jpg

Line Break Steem.png

পর্ব ০১ : দোকান একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য খোলা রাখা

আমাদের সমাজের যে বিষয়টা সবচেয়ে বেশি কষ্ট লাগে আমার কাছে তা হল, দোকানদার বা ব্যবসায়ীদের কষ্ট। যদিও আমি একজন ব্যবসায়ী না তারপরও ব্যবসায়ীদের কষ্ট আমার কাছে সবচেয়ে বেশি অনুভূত হয়। একজন দোকানদার সকালে তার দোকান খোলেন এবং রাত পর্যন্ত দোকানে বসে থাকেন। এই পদ্ধতির কারণে তিনি পরিবারকে খুব বেশি সময় দিতে পারেন না এবং পারিবারিক অন্যান্য বিভিন্ন কাজকর্ম ঠিক মত করতে পারেন না।

এরকম অনেক সময় দেখা যায় যখন দুপুরবেলা কিংবা অফ পিক সময় তখন একেবারে কাস্টমার থাকে না তারপরও দোকানদারকে তার দোকান খোলা রাখতে হয় কারণ হঠাৎ করে কোন কাস্টমার এসে যাতে বিদায় না নেয়। ব্যবসায়ীরা তাদের কাস্টমারকে সব সময় মূল্যায়ন করে থাকে। আর এ কারণে তাদের এই প্রচেষ্টা। কিন্তু আমরা এই পদ্ধতির পরিবর্তন আনতে পারি।

একটা বাজারে মানুষজন কখন যায় এবং কেন যায়। আমাদের দেশ বাংলাদেশ মানুষ সকালে এবং বিকেলে কোনও প্রয়োজন ছাড়াও অনেকে বাজারে যায়। কিন্তু স্বাভাবিক নিয়ম হচ্ছে যখন কারো কোন কিছু প্রয়োজন হবে তখনই তিনি বাজারে যাবেন। অস্বাভাবিক যে ব্যাপারটি সেটাকে আমরা ভুলে যাই। ধরে নিলাম মানুষ বাজারে অবশ্যই তার প্রয়োজনে যাবে। শুধু শুধু ফালতু আড্ডা দেয়ার জন্য নয়। যদি আড্ডা দেয়ার প্রয়োজন হয় তাহলে প্রকৃতির মাঝে বিভিন্ন রাস্তা ঘাট এবং পরিবেশে দিবে।

bazaar-1853361_1920.jpg
Source: Image by Pexels from Pixabay


তাহলে আমরা এরকম একটা সিস্টেম চালু করতে পারে যে নির্দিষ্ট কিছু দোকান নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত খোলা থাকবে আর যারা ক্রেতা রয়েছে তারা নির্দিষ্ট দোকানের সেই নির্দিষ্ট পণ্য পেতে হলে ওই নির্দিষ্ট সময়ে বাজারে যেতে হবে। এখন এখানে একটা সমস্যা তৈরি হবে তা হল, একেক মানুষের জব একেক রকম। অর্থাৎ কেউ সকালবেলা ফ্রি থাকেন আবার কেউ বিকেলবেলা ফ্রি থাকেন আবার কেউ রাতে ছাড়া সারাদিন ব্যস্ত থাকেন। তাহলে তারা কিভাবে ওই নির্দিষ্ট সময়টা মেন্টেন করবেন। এক্ষেত্রে সিস্টেমটা এরকম থাকবে যে, নির্দিষ্ট কিছু দোকান যেমন মুদি দোকান যদি বাজারে ধস না থাকে তাহলে পাঁচটা এ সপ্তাহের সকাল বেলা খোলা থাকবে এবং বাকি পাঁচটা বিকেল বেলা খোলা থাকবে। ঠিক এক সপ্তাহ পর কিংবা মাসিক সিস্টেমে একমাস পর উল্টে যাবে অর্থাৎ বাকি দোকানগুলো সকালে খোলা থাকবে এবং গত মাসে যেসব দোকান সকালে খোলা হয়েছিল সেগুলো এখন বিকেলে খোলা থাকবে।

যদি আমরা এই কাজটা করতে পারি তাহলে জাতীয় জীবন থেকে অনেক অপ্রয়োজনীয় সময় নষ্ট করাকে রোধ করতে পারব। এই ধরনের অব্যবস্থাপনার জন্য জাতীয় জীবন থেকে অনেক সময় নষ্ট হচ্ছে। যদি দোকানদার তার দোকানে বসে কোন ব্যক্তিগত কাজ করতে পারতেন কিংবা বই পড়তেন তাহলে হয়তোবা সময়টা কাজে লাগত কিন্তু যেহেতু তারা এই কাজটা করছেন না অন্যদিকে পরিবার থেকেও দূরে থাকেন তাই সব মিলিয়ে সমাজের জন্য এটা একটা খারাপ প্রভাব তৈরি করছে।

এই সিস্টেম চালু থাকলে ক্রেতারা যেমন জেনে যেত যে, কখন বাজারে গেলে দোকান খোলা পাওয়া যাবে এবং তারা সেই সময়টাতেই বাজারে যেতেন। আবার অন্যদিকে বিক্রেতারাও এই সময়টাতে দোকান খোলা রেখে বাকি সময়টা তাদের প্রয়োজনীয় কাজ খুব সহজেই করে ফেলতে পারতেন এবং পরিবারকে সময় দেয়ার মাধ্যমে একটি সুন্দর পরিবার গঠন করতে পারতেন যেটা সবার জন্যই কল্যাণকর হতো।

তাই আমি কখনো সুযোগ পেলে এই কাজটি করতাম। অনেকের কাছে এটা হয়তোবা খুব সাধারন একটি বিষয় মনে হতে পারে কিন্তু এর ইম্প্যাক্ট বা প্রভাব সমাজের জন্য অনেক বেশি সুদূর প্রসারী হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

Line Break Steem.png

শেষকথাঃ

অনেক সময় একটা ছোট্ট ধারণা বড় কিছু করে দিতে পারে। আমার শেয়ার করা ধারণা গুলো অনেক ছোট এবং সাধারণ। কিন্তু এগুলো প্রয়োগ করতে পারলে সমাজে একটা ব্যাপক পরিবর্তন আনয়ন করা সম্ভব বলে আমি বিশ্বাস করি। এই পোষ্টের মাধ্যমে কেউ যদি উপকৃত হতে পারেন তাহলেই এই পোষ্ট লিখার স্বার্থকতা এবং কোন পরামর্শ ও মন্তব্য থাকলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ।




আমি কেঃ

আমি সাইফুল। পেশায় শিক্ষক। সাবেক ব্যাংকার। পড়াশুনা প্রকৌশলবিদ্যায়। আমি আমার চিন্তাভাবনা এবং ধারণাগুলোকে ব্লগে শেয়ার করতে ভালবাসি।


Intro Steem.gif
Line Break Steem.png

অন্যান্য ভিডিও শেয়ারিং মিডিয়াতে আমার সাথে যুক্ত হতে পারেনঃ

|Youtube| DTube |


Amar Bangla Blog Logo.png


Comments 6


ভাইয়া আপনার প্রতিটি পোসট আমাদের কিছু না কিছু শিক্ষা দিয়ে যায়।আপনার পোসট পড়ে আমি প্রতি নিয়ত কিছু না কিছু শিখছি যেগুলো সবই আমার অজানা ছিল।ধন্যবাদ ভাই এতো সুন্দর সুন্দর পোস্ট উপহার দেওয়ার জন্য।

16.11.2021 17:53
0

অসাধারণ একটি বিষয় আপনি তুলে ধরেছেন যা আমরা কোনোদিন কল্পনা করেছে কিনা এটা সন্দেহ। আমি এক বন্ধুর বাড়িতে গেলাম তাদের একটা অনুষ্ঠানে। যাওয়ার পর বন্ধুর বাবা কে পেলাম না বাকি সবাই আছে আমি বললাম তোর বাবা কোথায় বলল বাবা তো দোকানে। আসলেই এমনটা হয়ে থাকে যারা ব্যবসা করে আর দোকানদারি করেন তারা মোটেও কোন কিছুতে সময় দিতে পারে না এই চিন্তা ধারণাটা আমাদের আসলেই একটা পরিবর্তন আনা উচিত্।

16.11.2021 18:39
0

আপনার এই সিস্টেমটি আমার কাছে জাস্ট দারুন লেগেছ। আর এভাবে আসলে আমরা সবাই যদি ভাবতাম তাহলে আমাদের সমাজটা কতই না সুন্দর হতো আজ!! আসলে এই কথাগুলো যদি সমাজের উঁচু পদের মানুষগুলোর মাথায় আসতো তাহলে আমাদের এই দুর্দশা হতো না। আমার কাছে সত্যিই খুব ভালো লেগেছে ভাইয়া।

16.11.2021 19:41
0

ছোট একটা সিদ্ধান্ত কিন্তু ফলাফল সুদূরপ্রসারী। ধন্যবাদ।

17.11.2021 00:59
0

ভাই আপনার চিন্তা ধারা টি সুন্দর। আপনার চিন্তা টি প্রশংসার দাবী রাখে। আমরা আসলেই অনেক সময় নষ্ট করি শুধু একটু অনিয়মের কারনে। যাই হোক সুন্দর একটি চিন্তা আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন। ধন্যবাদ

17.11.2021 14:12
0

You have been upvoted by @abuahmad, a Country Representative of Bangladesh. We are voting with the Steemit Community Curator @steemcurator07 account to support the quality contents on steemit.


I invite you to join #club5050 if you haven’t joined yet

Follow @steemitblog for all the latest update and
Keep creating qualityful contents on Steemit!

Steem On

19.11.2021 17:07
0